একটি দুর্যোগের সন্ধ্যা

একটি দুর্যোগের সন্ধ্যা

“স্যার, সামনের স্টপ মুকুন্দপুর” বাস কন্ডাক্টরের কোথায় সম্বিত ফিরল সুবর্ণর। এতক্ষণ সে বাইরের দিকে এক মনে তাকিয়ে প্রকৃতির প্রলয়ঙ্কর দৃশ্য অনুভব করছিল। বাইরে তুমুল ঝড়বৃষ্টি হচ্ছে। সঙ্গে ঘন ঘন কান বিদীর্ণ করা বজ্রপাত। চারিদিক একেবারে মিশমিশে কালো অন্ধকার। কোথাও একফোঁটা আলোর বিন্দু পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে না। এ অন্ধকার আলো ঝলমলে কলকাতা শহরে বসে কেউ কল্পনাও read more

ত্রিকোণ প্রেমের জেরে

প্রথম পর্ব

কলিংবেল-এর আওয়াজে অরিন্দমের ঘুম ভেঙ্গে গেল। তখন থেকে কলিংবেলটা সমানে বেজে চলেছে। অরিন্দম ভাবল এখন আবার কে এলো! অরিন্দমের কাজের মাসিটা বেশ ভালো। অরিন্দমই তাকে বলে দিয়েছিল দু-তিনবার কলিংবেল বাজিয়ে তার সাড়া না পেলে জানো চলে যায়। যথারীতি আজও তার অন্যথা হয়নি। মাসি সকালে এসে কলিংবেল বাজিয়ে অরিন্দমের সাড়া না পেয়ে চলে গেছে। অরিন্দম মোবাইলটা মুখের কাছে ধরে দেখল read more

প্রিয়তম

ঋতিকা আজ পুরো ড্রেসিং টেবিলের সামনেটা ছড়িয়ে বসেছে। আজ সে খুব সাজবে। কারণ আজ প্রথমবার অভীক তার ফ্ল্যাটে আসছে। ঋতিকা তাই চায়না কোনকিছুতেই কোনোরকম ভুল হোক। সাধারণত সে সাড়ে নয়টার আগে বিছানা ছাড়েনা, কিন্তু আজ সে সাড়ে সাতটার সময় ঘুম থেকে উঠেছে। কাজের মেয়েটাকে ঋতিকা আগে থেকে বলে রেখেছিল সে যান আজ সকাল সকাল আসে। কিন্তু ঋতিকা ঘুম থেকে উঠে দেখলো কমলি তখনও আসেনি। তাই সে উঠে নিজে read more

ওলা (OLA)

শুক্রবার। পল্লবী তাড়াহুড়ো করে অফিস থেকে বেরচ্ছিল, এমন সময় ফোনেটা বেজে উঠল। পল্লবী ফোনটা রিসিভ করে হ্যালো বলতেই ওপার থেকে তার মায়ের গলা ভেসে এলো ” পলি, শোন না। তোর বাবার ইনসুলিনটা আজ সকালে শেষ হয়ে গেছে। আসার সময় একটু মনে করে নিয়ে আশিস মা। নাহলে তোর বাবার সুগারটা আবার বেড়ে যাবে”। “ঠিক আছে। নিয়ে আসব” বলে পল্লবী ফোনেটা কেটে দিল। তারপর ওলা অ্যাপ থেকে একটা ক্যাব বুক করে read more